অনলাইন শপিং করছেন? সাবধান!

অনলাইন শপিং

ই-কমার্স সাইট থেকে কেনাকাটা করেন? কিংবা নেট ব্যাংকিং পরিষেবা গ্রহণ করেন?  যদি এইসব আধুনিক ব্যবস্থায় আপনি অভ্যস্ত হয়ে থাকেন তাহলে অনলাইন লেনদেনের ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। না হলে আপনার কষ্টার্জিত টাকা চলে যেতে পারে অন্যের পকেটে! অনলাইনে টাকা লেনেদেনের প্রবণতা যেমন বাড়ছে, তেমনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে লোক ঠকানোর কারবারও।

এবার দেখে নিন, ঠিক কী কী খেয়াল রাখতে হবে আপনাকে-
১. এটিএম কার্ড হোক কিংবা নেট ব্যাংকিংয়ের পাসওয়ার্ড, এই দুই ক্ষেত্রেই কখনো নিজের জন্ম তারিখ, প্রিয়জনের জন্মতারিখ, নামের আদ্যাক্ষর বা খুবই চেনা জানা শব্দ-সংখ্যা ব্যবহার করা উচিত নয়।

২. সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা মোবাইল ফোন, নিজের পাসওয়ার্ড কারোর সঙ্গে শেয়ার করবেন না। তিনি যতই আপনার কাছের মানুষ হোন না কেন, পাসওয়ার্ড একমাত্র আপনার ব্যক্তিগত বিষয়।

৩. অজানা কোনো ব্যক্তি বা কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে আসা ই-মেল-এর লিঙ্কে ক্লিক করবেন না। অনেক সময়েই সেগুলিতে স্প্যামওয়্যাল বা ম্যালওয়্যার থাকে, যা আপনার ব্যক্তিগত বহু নথি ও পাসওয়ার্ড চুরি করতে পারে।

৪. ই-মেল মারফত আপনার প্যান ও আধার নম্বর চাওয়া হলে কখনো তার জবাব দেবেন না। জেনে রাখুন, কোনো সরকারি সংস্থা আপনার প্যান, আধার কিংবা ক্রেডিট কার্ডের নম্বর ফোন বা মেল মারফৎ জানতে চায় না।

৫. আপনি যে ই কমার্স সংস্থা থেকে কেনাকাটা করছেন, তাদের ওয়েবসাইট সুরক্ষিত কিনা সেটা আগে জেনে নিতে হবে। না হলে অনলাইনে কেনাকাটা করতে গিয়ে বিপদের মুখে পড়তে হবে আপনাকে। প্রথমেই দেখে নিন, অ্যাড্রেস বারে http-এর পর একটা ‘s’ রয়েছে কিনা। ‘s’ থাকলে সাইটটি সুরক্ষিত। অ্যাড্রেস বারের বাঁ দিকে একটা তালার চিহ্নও থাকবে, তার মানে সেই সাইটটি সুরক্ষিত।

৬. যদি কখনো মনে হয় আপনার অ্যাকাউন্টে অবৈধ লেনদেন হয়েছে, তাহলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। চটজলদি খবর দিন পুলিশের সাইবার শাখায়।

৭. পাবলিক ওয়াইফাই বা ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করে ব্যক্তিগত লেনদেন না করাই ভালো। চেষ্টা করুন, নিজস্ব ডিভাইস থেকে লেনদেন করতে।  সূত্র: ইন্টারনেট

আরও পড়ুনঃ অনলাইন শপিং: ৬ উপায়ে আপনার অর্থ হাতিয়ে নিতে পারে হ্যাকাররা

পোস্টি ভাল লাগলে অবশ্যই শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 2 =